WhatsApp VS Telegram VS Signal কোনটা বেশি সিকিউর?

বন্ধুরা আজকে আমরা কথা বলবো Signal, Telegram & WhatsApp এর মধ্যে কোনটা সেফ আমাদের জন্য স্পেশালি চ্যাট করার জন্য। কোনটি বেশি প্রাইভেসি প্রোভাইড করে, কোনটা বেশি ফিচার প্রোভাইড কর্‌ আর কোন অ্যাপস আপনার ব্যাবহার করা উচিত হবে না একদমই এসব নিয়ে ডিসকাস করবো আজকের আর্টিকেলে।
তো আপনি যদি একজন টেক লাভার হয়ে থাকেন তাহলে এই লেখাটি কন্টিনিউ করতে পারেন –

WhatsApp

WhatsApp image

সবার প্রথমে আমরা যেটা নিয়ে কথা বলবো সেটা হচ্ছে মেটার মেসেজিং প্রোডাক্ট WhatsApp কে নিয়ে। আমরা সবাই জানি WhatsApp কতটা জনপ্রিয়। বিলিয়নস অফ ইউজার আছে তাদের ইভেন বর্তমানে এটা কিন্তু বিশ্বের ওয়ান অফ দ্যা বেস্ট মেসেজিং প্লাটফর্ম।

সবথেকে বেশি ইউজার যদি কোন এপ্লিকেশনের থেকে থাকে তাহলে সেটা কিন্তু Whatsapp. আর এটার মালিক কিন্তু মেটা, যা কিনা ফেসবুকেরও প্যারেন্টস। কিন্তু প্রাইভেসির মামলায় মেটার নামে কিন্তু কলঙ্ক রয়েছে বেশ খানি সেটা আমরা সবাই জানি।

ফেসবুক, মেটা, এগুলার কোন আলাদা স্পেশাল ইমেজ নাই কিন্তু যদি আমি প্রাইভেসির কথা বলি।

তো এটা কিন্তু সত্য যে Whatsapp আমাদের ডাটা কালেক্ট করে। আপনি যদি Whatsapp এর বিজনেস ভার্শন ইউজ করে থাকেন সেটাও কিন্তু আমাদের ডেটা কালেক্ট করে থাকে।

এজন্য যদি প্রশ্ন আশে প্রাইভেসির সম্পর্কে তাহলে Whatsapp কিন্তু খুব একটা ভালো চয়েস না। আর যদি ফিচারের কথা বলি তাহলে কিন্তু ভাই Whatsapp দুর্দান্ত, অসাধারন সব ফিচার আছে কম্পেয়ার টু আদার মেসেজিং প্লাটফর্ম।

এন্ড টু এন্ড এন্টক্রিপশন সুবিধা আছে ডিফল্ট ভাবেই তো এটা বলা যায় যে সিকিউর আছে খুব বেশি প্রবলেম নাই।

Telegram

Telegram Image

চলেন এবার টেলিগ্রাম নিয়ে কিছুটা জেনে আসি। আপনি যদি একজন টেলিগ্রাম ইউজার হয়ে থাকেন এবং যদি আপনি ভেবে থাকেন টেলিগ্রাম এন্ড টু এন্ড এনক্রিপ্টেড চ্যাট প্রোভাইড করে থাকে তাহলে আপনি কিন্তু খুবই একটা ভুল জানেন না,

কিন্তু এটা কিন্তু ডিফল্ট ভাবে এন্ড টু এন্ড এনক্রিপ্টেড নয়। যখন আপনি টেলিগ্রামে চ্যাট করে থাকেন তখন কিন্তু নরমাল চ্যাটের মতোই হয়ে থাকে মানে end to end encrypted থাকে না।

End to end encrypted সুবিধা পেতে হলে আপনাকে সিক্রেট চ্যাট ইউজ করা লাগবে মানে হল encryption সুবিধা পেতে হলে আপনাকে ম্যানুয়ালি যেয়ে সেট করে নিতে হবে।

এটা একটা ক্লাউড বেস মেসেজিং প্লাটফর্ম আমাদের মেসেজগুলা ক্লাউডে স্টোরেজ হয়ে থাকে। কিন্তু end to end encrypted তখন ই হবে যখন আমরা নিজেরা সিক্রেট চ্যাট ওপেন করবো।

তো সিকিউরিটির মামলায় এটাও কিন্তু বেশ খানি প্রশ্নবিদ্ধ, কারণ সবাই কিন্তু আর এই end to end encrypted সুবিধা নিয়ে আপনার আমার মতো করে জানে না। আর তাই যারা ই ব্যাবহার করে থাকে সবাই কিন্তু নরমাল ইউজের মতো করেই ব্যাবহার করে থাকে। তাই এট কিন্ত অনেটা ইনসিকিউর আমাদের জন্য।

হ্যা সিক্রেট চ্যাট সেট করে আপনি ব্যাবহার করতে পারেন, ইভেন টেলিগ্রাম তো দাবি করে তাদের ভয়েস কল ভিডও কল এগুলা encrypted , কিন্তু চ্যাটে কিন্তু আপনি ডিফল্ট ভাবে এই সুবিধা পাবেন না।

তাই আমার মতে এটা কিন্তু টেলিগ্রামের একটা ব্যাড সাইড। তাই চ্যাট করার জন্য আমি আপনাকে টেলিগ্রাম রেকমান্ড করবো না।

মানে আপনি যদি একজন সচেতন ইউজার হয়ে থাকেন তাহলে আপনার কিন্তু টেলিগ্রাম ইউজ না করাই বেটার। স্পেশালি সিক্রেট কনভার্সনের সময়। বাই দ্যা ওয়ে সম্প্রতি কিন্তু টেলিগ্রাম তাদের অ্যাপে কিছু প্রিমিয়াম ফিচার লঞ্চ করছে না জেনে থাকলে নিচের লেখাটি পড়তে পারেন।

টেলিগ্রাম প্রিমিয়াম কি এবং এর ফিচারসমূহ

Signal

চলুন এবার আন্ডাররেটেড এই সিগন্যাল অ্যাপ নিয়ে কিছুট কথা বলা যাক। সিগন্যাল কিন্তু একটি নন প্রফিট অর্গানাইজেসন থেকে তৈরি। এই অ্যাপ এ আপনি সেসব সুবিধা পাবেন যা WhatsApp & Telegram এ পেয়ে থাকেন।

যদিও আপনি খুব বড় সাইজের ফাইল শেয়ার করতে পারবেন না। যেমন ১০০,২০০ জিবির বড়ো বড় ফাইল কিন্তু আপনি এটার মাধ্যমে শেয়ার করতে পারবনে না।

এটার নটিফিকেশন ফিচার ও কিন্তু আপনি চাইলে কিছুটা চেঞ্জ করতে পারেন। কিন্তু নরমাল সব ফিচার কিন্তু আপনি সিগন্যাল এ পেয়ে যাচ্ছেন যা Whatsapp এ পাচ্ছেন। সাথে কিন্তু এটার আরো একটি এক্সট্রা ফিচারও রয়েছে কল রিলে অপশন।

যদি প্রশ্ন করেন এই কল রিলে আবার কি – যখন আপনি কাউকে কল করেন whatsapp, Telegram কিংবা Signal থেকে তো আপনার ডিরেক্ট আইপি কিন্তু লিক হয় না । সবথেকে প্রথমে আপনার আইপি তাদের সার্ভারে যাবে এবং সেখান থেকে রিলে হয়ে অন্য কারো কাছে।

অনেকের কাছে এটা প্রব্লেমেটিক মনে হতে পারে। কিন্তু আসলে কিন্তু এটা প্রবলেমেটিক কিছু নয় বরং এটা কিন্তু বেশ ভালো একটি ফিচার। কারণ আপনি যাকে কল করছেন সে কিন্তু আপনার আসল আইপি চাইলেও ট্রাক করতে পারবে না। তাই এটা কিন্তু দুর্দান্ত বলা চলে।

কোনটা বেটার ?

তো প্রাইভেসির মামলায় কিন্তু Signal App অন্যগুলা থেকে অনেটা বেটার । আবার end to end encrypted ও। আর সবথেকে বড় কথা এট কিন্তু নন প্রফিট অর্গানাইজেশনের মানে অন্যদের মতো এরা কিন্তু আপনার ডাটা কালেক্ট করছে না। তাই আমার মতে এটা অন্যদের থেকে বেশি প্রাইভেট এবং সিকিউর।

তো আপনি যদি প্রাইভেট চ্যাট করতে চান, প্রাইভেসি নিয়ে খুব বেশি Concern তাহলে সিগন্যাল এপ্লিকেশন বেটার। তারপর Whatsapp, যদিও মেটার ইমেজ অতটাও ভালো নয় কিন্তু টেলিগ্রাম কিন্তু ভাই আমার মতে সেফ নয়।

আপনি যদি ম্যানুয়ালই সিক্রেট চ্যাট সেট করে ইউজ করেন তাহলে ঠিক আছে কিন্তু নরমালি কিন্তু ঠিক নাই।

Environment

চলুন এবার App গুলার এনভাইরোনমেন্ট এবং আদারস নিয়ে কিছু কথা বলা যাক। তো নরমালি আমাদের দেশে কিংবা কম্পেয়ার টু আদারস পারটিকুলার মেসেজিং অ্যাপ সিগন্যালের ইউজার বেজ কিন্তু বেশ কম। এর পরে রয়েছে টেলিগ্রাম এবং তারপরে WhatsApp এর, যদিও বর্তমানে কিন্তু Telegram 700 মিলিয়ন ইউজার ক্রস করে ফেলেছে।

তো আপনি যদি Signal App ইউজ করতে চান তাহলে ইউজার বেজ কম থাকার কারনে কিন্তু আপনার বেশিরভাগ ফ্রেন্ড আপনি এখানে পাবেন না। যদিও টেলিগ্রামে কিছু কিছু ফ্রেন্ড আপনি পেয়ে যাবেন । কিন্তু ভয়ানক হলেও সত্য যে টেলিগ্রাম কিন্তু এখন বেশির ভাগ স্কামার রা বেশি ইউজ করে থাকে।

খেয়লা করলে দেখবেন পাইরেসি, হাবিজাবি অন্যান্য মিডিয়া থেকে টেলিগ্রামে বেশি হয়ে থাকে । তো এমন একটা এনভাইরোনমেন্ট আপনার জন্য একদমই সুইটেবল হবে বলে মনে হয় না। আপনি চাইলে ইউজ করতে পারেন তবে আমি রেকমেন্ড করবো না।

আর যদি WhatsApp এর কথা বলি, তাহলে এখানে সবথেকে প্লাস পয়েন্ট আপনি পাবেন সেটা হচ্ছে আপনার বেশিরভাগ কন্টাক বা বেশিরভাগ ফ্রেন্ডস আপনি কিন্তু WhatsApp এ পেয়ে যাবেন । এটা কিন্তু WhatsApp ইউজার হলে আপনি বুঝেত পারবেন।

WhatsApp ও সিকিউর আছে মোটামুটি, স্বাভাবিক ভাবে end to end encrypted ও কিন্তু হ্যা WhatsApp ও কিন্তু আপনার ডাটা কিছুটা নিয়ে থাকে তাদের Advertisement এবং অন্যান্য প্রোডাক্টের জন্য। কিন্তু মেসেজিং বা পার্সনাল চ্যাট বা মেসেজিনং কিন্ত সেফ বলা চলে।

যদিও সব App ই কম বেশি ফিচার এবং সিকিউরিটি দেওয়ার চেষ্টা করে থাকে তার মধ্য থেকে আরো কিছুটা সিকিউর থাকা এবং নিজেদের কে সিকিউর রাখা কিন্তু আপনার আমার দায়িত্ব। তাই কোনটা ব্যাবহার করবেন কেন ব্যাবহার করবেন এটা আপনার দায়িত্ব ।

শেষ কথা

তো এই ছিলো আমাদের আজকের লেখা। আমি শুধু চেষ্টা করেছি WhatsApp, Telegram & Signal অ্যাপ নিয়ে আপনাদের কিছু তথ্য শেয়ার করতে। আশা করি আপনাদের ভাল লাগবে। লেখাটি পড়ে আপনাদের কাছে কেমন লাগলো, আর আপনি পার্সনালি কোন মেসেজিং অ্যাপ বেশি ব্যাবহার করে থাকেন কমেন্ট করে জানাবেন কিন্তু। ধন্যবাদ ❤

4.5/5 - (2 votes)

2 thoughts on “WhatsApp VS Telegram VS Signal কোনটা বেশি সিকিউর?”

  1. অসাধারন লিখেছেন ভাই। অনেক কিছু সম্পর্কে ধারনা ক্লিয়ার হল ❤

    Reply

Leave a Comment